সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ১২:০৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
ভান্ডারিয়ায় মিরাজুল ইসলামের জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া অনুষ্ঠান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র রাজপথে মোকাবেলা করতে হবে — যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ভান্ডারিয়ায় শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ভান্ডারিয়া উপজেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ভান্ডারিয়ায় মৎস্যজীবিদের মাঝে জাল ও বকনা বাছুর বিতরণ গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য কাচারি ঘর বিলুপ্তির পথে ভান্ডারিয়া উপজেলা নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় চেয়ারম্যানসহ দুই ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভান্ডারিয়ায় পেনশন স্কিম মেলা উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে পিরোজপুরে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করেইন্দুরকানীতে শেখ রাসেল স্মৃতি পাঠাগারে আগুন জেপি’র চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহিবুল হোসেনের মনোনয়নপত্র বাতিল পিরোজপুরে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি ঢাকায় গ্রেফতার ভান্ডারিয়ায় ককটেল ফাটিয়ে, কুপিয়ে ব্যবসায়ীর টাকা ছিনতাই ভান্ডারিয়া উপজেলা নির্বাচনে তিন পদে ৬ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল কাউখালীতে গাজার গাছ সহ যুবক গ্রেফতার ভান্ডারিয়ার অটো চালক কাওসারের লাশ কাঠালিয়ায় উদ্ধার কাউখালীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মিশুক ড্রাইভার নিহত ভান্ডারিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মিরাজুল ইসলামের মনোনয়নপত্র দাখিল ভান্ডারিয়ায় স্কাউট ভবন নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন ভান্ডারিয়ায় পিকআপ চাপায় বৃদ্ধের মৃত্যু
বিয়ের আশ্বাসে প্রেমিকাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে হত্যা

বিয়ের আশ্বাসে প্রেমিকাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে হত্যা

বিয়ের আশ্বাসে প্রেমিকাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক।।

হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রাজিউড়া গ্রামে চাঞ্চল্যকর আকলিমা (২৫) হত্যার রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। ঘটনার সাতদিন পর বুধবার (১ জানুয়ারি) আদালতে আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য প্রকাশ্যে আসে।

এর আগে মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) গভীর রাতে উপজেলার উচাইল বাজারে অভিযান চালিয়ে মামলার আসামি আনোয়ার হোসেনকে (২৮) গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতার আনোয়ার হোসেন উচাইল গ্রামের আব্দুল আহাদের ছেলে ও পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি।

সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী জানান, বুধবার দুপুরে আসামি আনোয়ারকে হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিনা হকের আদালতে পাঠানো হলে তিনি ঘণ্টাব্যাপী সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে হত্যাকাণ্ডের লোমহর্ষক বর্ণনা দেন।

আসামি আনোয়ার জানান, মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার জাম্বুরা চড়া গ্রামের হেলাল মিয়ার মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা আকলিমা আক্তারের সঙ্গে মুঠোফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয় তার। আকলিমা ঢাকার গাজীপুরে একটি গার্মেন্টে কাজ করতেন। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। উভয়ই বিবাহিত ও সন্তান রয়েছে। বিষয়টি গোপন রেখেই গত ৪ মাস ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক চলে। পরবর্তীকালে বিষয়টি শারীরিক সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ায়।

এদিকে গত ২২ ডিসেম্বর তাদের গোপন তথ্য ফাঁস হয়ে যায়। এতে উভয়ের মধ্যে কলহ দেখা দেয়। একপর্যায়ে আকলিমা আনোয়ারকে হুমকি দেয় যে তাকে বিয়ে না করলে গ্রামে এসে তাদের সম্পর্কের কথা ফাঁস করে দেবে। এরই জেরে আনোয়ার তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে কৌশলে আকলিমাকে তার বাড়িতে আসতে বলেন আনোয়ার।

তার কথা মতো গত ২৩ ডিসেম্বর রাত ৮টার দিকে এনা পরিবহনের বাসে গাজীপুরের টঙ্গী থেকে রওয়ানা হয়ে রাত ১২টার দিকে অলিপুর এসে আনোয়ারের সঙ্গে তার বাড়িতে যায় আকলিমা। পরে পরিবারের অগোচরে আকলিমাকে নিয়ে রাত্রিযাপন করেন আনোয়ার। এরপর ২৪ ডিসেম্বর গভীর রাতে আকলিমাকে কৌশলে বাড়ির পাশের একটি ঝোপের ভেতর নিয়ে যান। সেখানে আকলিমার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে তার মৃত্যু নিশ্চিত করেন আনোয়ার।

ওসি মাসুক আলী বলেন, পরদিন ২৫ ডিসেম্বর রাতে পুলিশ আকলিমার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। এ ঘটনায় আকলিমার বড় ভাই আমির হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন। মরদেহ উদ্ধার হওয়ার পরপরই এটিকে হত্যা বলে সন্দেহ করে পুলিশ। পরে মরদেহের কাছ থেকে পাওয়া এনা পরিবহনের বাসের টিকিট ও মুঠোফোনের কল লিস্টের সূত্র ধরে ঘাতক আনোয়ার হোসেনকে শনাক্ত করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana
error: Content is protected !!