সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৪৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
ভান্ডারিয়ায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালিত কৃষি কর্মকর্তা কর্তৃক সাংবাদিক হেনস্তার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ কাউখালীতে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটি গঠন কাউখালীতে সংসারের হাল ধরতে বাবার পেশা খেয়া ঘাটের মাঝি হলেন স্কুল ছাত্রী মুনিরা ভান্ডারিয়ায় টাস্কফোর্স কমিটির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ভান্ডারিয়ায় ওয়ার্ল্ড ভিশনের দুর্যোগ সামগ্রী বিতরণ ভান্ডারিয়ায় ফুটপাতের অবৈধ দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান ভান্ডারিয়ায় বজ্রপাতে কৃষকের ৪ মহিষের মৃত্যু ভান্ডারিয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের অনশন চার ঘন্টা পর প্রত্যাহার ভান্ডারিয়ায় দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষনের চেষ্টা॥ লম্পটের আংশিক লিঙ্গ কর্তন কারারক্ষী পদে চাকুরীর প্রলোভন অর্থ আদায় ভান্ডারিয়ায় প্রতারক চক্রের দুই সদস্য গ্রেপ্তার ভান্ডারিয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় দোকানীকে গরম পানি দিয়ে ঝলসে দেওয়া অভিযোগ (ভিডিও) ভান্ডারিয়ায় পাওয়ার গ্রিডে আগুন ৫ উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ ৪ ঘন্টা বন্ধ কাউখালীতে এনজিও ঋনে সাধারণ মানুষ জর্জরিত মঠবাড়িয়ায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে প্রশিক্ষণ ও উপকরন বিতরণ কাউখালীতে মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত সার্ক জার্নালিষ্ট ফোরাম বাংলাদেশ চাপ্টার এর কমিটি ঘোষণা ইন্দুরকানীতে সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষীর মৃত্যু পিরোজপুরে জাল টাকা ব্যবসায়ীর ১৪ বছরের কারাদন্ডাদেশ ভান্ডারিয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ মামলার আসামী র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার
কলকাতার রাইটার্স বিল্ডিং এর ভূত রহস্য (ভিডিও)

কলকাতার রাইটার্স বিল্ডিং এর ভূত রহস্য (ভিডিও)

ভূতের ব্যাপারটাই ভারি অদ্ভুত। ভূত শব্দটার মধ্যে রয়েছে অজানা রহস্য। রয়েছে গা ছম ছম করা ভাব। ভূত আছে কি নেই এ নিয়ে গবেষণাও হয়েছে বিস্তর। অদৃশ্য, অলৌকিক, কাল্পনিক অবয়বটি কি আসলেই আছে! একটু গভীরভাবে ভাবলে হয়তো মনে হবে এর কোনো অস্তিত্বই নেই। এটা গুরুত্বপূর্ণও নয়। কিন্তু এসব প্যারানরমাল অ্যাক্টিভিটিজ খুলে দিচ্ছে অজানা রহস্যের দরজা। রয়েছে এসব মিথের আড়ালে রহস্যময় গল্পগুচ্ছ। যা অনেকের কাছেই অজানা। হালফিল কলকাতায় বড্ড ভিড়, অনেক আলো। রাতকে দিন করে দেওয়ার মতো আলোর ম্যাজিক রয়েছে এখানে। এমনই এক বিল্ডিং কলকাতার রাইটার্স বিল্ডিং।

টমাস লায়ন্সের নকশায় ১৭৭০ সালে স্থাপিত হয় রাইটার্স বিল্ডিং, যার বাংলা নাম মহাকরণ। এটি বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রশাসনিক ভবন। তবে শুরুর দিকে, ১৭৭৬ সালে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির ইউরোপীয় কেরানিদের বসবাসের জন্য উনিশটি পৃথক অ্যাপার্টমেন্ট তৈরি করা হয় এখানে, যেগুলি দেখতে ছিল সারিবদ্ধ দোকানের মতো। তখনকার দিনে এই কেরানিদের বলা হতো রাইটার। তাদের থেকেই ভবনটির নাম হয়েছে রাইটার্স বিল্ডিং।

কলকাতা শহরের বুকে এত পুরনো ও প্রকাণ্ড একটি দালান থাকবে, আর তার নামে ভূতুড়ে অপবাদ জুটবে না, তা কি আর হয়! স্থানীয়দের মধ্যে যারা একদম দিনের শেষ ভাগে, রাইটার্স বিল্ডিং প্রায় নির্জন হয়ে যাওয়ার পর সেখানে গিয়েছেন, তারা কার যেন ফিসফিসানি, হাসি, এমনকি আর্তচিৎকারের আওয়াজ পর্যন্ত শুনতে পেয়েছেন। একটি জনপ্রিয় অভিমত হলো, এসব ভূতুড়ে শব্দের পেছনে দায়ী ব্রিটিশ আমলের কতিপয় বিপ্লবী।

দিনের বেলায় সরকারি কাজের দরকারি দপ্তর। রাতে এখানেই শুন্য লবিতে কি সব নাকি হয়। সন্ধ্যার পর কেউই এই বাড়িটিতে থাকার সাহস দেখান না। যারা রাত কাটিয়েছেন, তাদের অনেকেই মাঝরাতে হঠাৎ কান্না, হাসি কিংবা চিৎকারের শব্দ শুনতে পেয়েছেন। নাইট গার্ডরা বলেন এখানের পাঁচ নম্বর ব্লক জায়গাটা নাকি সুবিধের নয়। বারান্দা দিয়ে কারা যেন হেঁটে বেড়ায়। শোনা যায়, টাইপের শব্দ। মনে হয়, খুব মনোযোগ দিয়ে কারা যেন কাজ করছেন। দোতলায় সিঁড়িতে কারা যেন ভেসে উঠেই মিলিয়ে যায়। হঠাৎ করে কে যেন চিৎকার করে ওঠে। যদিও এসবের কোন সদুত্তর মেলাতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। তবে ইতিহাস বলে এখানেই এক সময় ছিল ভাং আর কলা গাছের জঙ্গল। একবার বেশ কয়েকজন ব্রিটিশকে এখানে কবর দেয়া হয়ছিল। লর্ড ভ্যালেন্টিনে লেখায় তথ্য মেলে দিল্লি থেকে আসা নব্য রাইটারদের মধ্যে ঘোড়ায় টানা গাড়ির খেলা কিংবা ডুয়েল চলতো। এতে করে সর্বদাই লেগে থাকতো খুন জখম। এমন বহু ঘটনার কথা আজও কলকাতাবাসীর মুখে মুখে। বিনয়, বাদল, দিনেশের হাতে কর্নেল সিমসনের ঘটনাও কি ফেলে দেয়া যায়! এসব ঘটনার আগে এখানে সরকারী কর্মীরা থাকতো। এরপর বহু দশক ধরেই ভবনটির বহু ঘর বন্ধ করে রাখা হয়েছিল। বলাবাহুল্য বর্তমানে রাজ্য সরকারের দফতর হলেও ভৌতিক কর্মকাণ্ড একদম কমেনি।

 

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন










© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana