রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৩:১৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
শোক দিবস পালনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনুদান দিলেন মিরাজুল ইসলাম কোন সরকার বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচারের দায়িত্ব নেয়নি-মহিউদ্দিন মহারাজ ইন্দুরকানীতে নদীর চর থেকে অজ্ঞাত যুবকের অর্ধ গলিত মরদেহ উদ্ধার ইন্দুরকানীতে থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত শিশু সুমাইয়ার পাশে দাঁড়ালো চন্ডিপুর ইউনিয়ন মানবিক কল্যান পরিষদ নাজিরপুরে ভাইয়ের পরিবারকে মিথ্যা মামলা দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভূগী মঠবাড়িয়ায় শিক্ষকদের সাথে বিভাগীয় কমিশনারের মতবিনিময় সভা সৎ মেয়েকে নিয়ে পালানো যুবক গ্রেপ্তার, প্রকাশ্যে ফাঁসির দাবি স্ত্রীর কাউখালীতে পাইপগানসহ দুইজন গ্রেফতার মঠবাড়িয়ায় পরকিয়ার জেরে বিউটিশিয়ান নারী খুন : ঘাতক স্বামী ও স্কুল শিক্ষিকা গ্রেপ্তার সংকট মোকাবিলায় এলএনজি আমদানিই ভরসা: প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা হেলিকপ্টার দুর্ঘটনা : চলেই গেলেন র‍্যাব কর্মকর্তা ইসমাইল ভান্ডারিয়া থেকে ছেড়ে যাওয়া মনিংসান লঞ্চের ধাক্কায় বাল্কহেড ডুবে ২ শ্রমিক নিখোঁজ ভান্ডারিয়ায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালিত কৃষি কর্মকর্তা কর্তৃক সাংবাদিক হেনস্তার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ কাউখালীতে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটি গঠন কাউখালীতে সংসারের হাল ধরতে বাবার পেশা খেয়া ঘাটের মাঝি হলেন স্কুল ছাত্রী মুনিরা ভান্ডারিয়ায় টাস্কফোর্স কমিটির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ভান্ডারিয়ায় ওয়ার্ল্ড ভিশনের দুর্যোগ সামগ্রী বিতরণ ভান্ডারিয়ায় ফুটপাতের অবৈধ দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান ভান্ডারিয়ায় বজ্রপাতে কৃষকের ৪ মহিষের মৃত্যু
নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাশের প্রয়োজন ছিল না: প্রধানমন্ত্রী

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাশের প্রয়োজন ছিল না: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছেন, আমরা বুঝতে পারিনি কেন ভারত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) পাশ করলো। এর প্রয়োজন ছিল না।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে গাল্ফ নিউজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী তার এ মতামত জানান। গতকাল শনিবার মধ্যপ্রাচ্যের সংবাদমাধ্যমটি এ খবর প্রকাশ করেছে। প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, ভারত থেকে এখনো কেউ বাংলাদেশে অভিবাসী হয়ে আসেনি। তবে ভারতের মধ্যেই মানুষ নানা ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে।

ভারতে ১০ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনে বাংলাদেশ ও অন্যান্য প্রতিবেশী দেশে নির্যাতনের শিকার হওয়া অসুমলিম সংখ্যালঘিষ্ঠদের নাগরিকত্ব দেয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে। ২০১৯ সালের ১১ ডিসেম্বর ভারতীয় সংসদে সেটি পাশ হয়।

এ আইনের ফলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ২০১৪ সালের ডিসেম্বরের আগে ভারতে যাওয়া হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি, খ্রিস্টানদের নাগরিকত্ব লাভের সুযোগ করে দেবে।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ সবসময় সিএএ ও জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি)কে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে দেখেছে। ভারত সরকারও বারবার জানিয়েছে এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং ২০১৯ সালের অক্টোবরে ভারত সফরের সময় দেশটির প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি ব্যক্তিগতভাবে আমাকে এ বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন










© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana