সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
রাষ্ট্রীয় সম্মান নিয়ে কাউখালীর বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমানের শেষ বিদায় কাউখালীতে ব্রীজ নির্মান কাজ ৫ বছরে শেষ না হওয়ায় জনগনের ভোগান্তি চরমে কাউখালীতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস উপলক্ষে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার একটি অংশ–মহিউদ্দিন মহারাজ (এমপি) মায়ের লাশ বাড়িতে রেখে এসএসসি পরীক্ষার হলে দুই ভাই ভান্ডারিয়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন শাহ বাবুল মারা গেছেন পিরোজপুরে প্রতারণা মামলায় এহ্সান গ্রুপের অফিস সহকারী নাজমুল গ্রেফতার কাউখালীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু কাউখালীতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীদের ব্যাপক প্রচারনা ভান্ডারিয়া বিহারী লাল মিত্র পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া নাজিরপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ২ শিক্ষার্থী নিহত কাউখালীতে উপজেলা প্রশাসন অনাবাদি জমি আবাদে আনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে কাউখালীতে অবৈধ জাল দিয়ে মাছ ধরার অপরাধে জেলেকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত কাউখালীতে অগ্নিকাণ্ডে বসতবাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে সংসদে ইমাম-মুয়াজ্জিনের সম্মানজনক ভাতা দাবি মহিউদ্দীন মহারাজের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সদস্য হয়েছে মহিউদ্দীন মহারাজ পিরোজপুরে উজ্জ্বল হত্যার মামলার প্রধান আসামি গ্রেপ্তার পিস্তল ঠেকিয়ে শিক্ষককে হাতুরিপেটার অভিযোগ বেবী মালেঙ্গা খ্যাত কাউখালীর ক্রিকেটার সোহাগের স্বপ্ন ছাই হয়ে যাবে অর্থাভাবে
৯০ বছরের বৃদ্ধাকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দিয়েছেন মেয়ে

৯০ বছরের বৃদ্ধাকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দিয়েছেন মেয়ে

মায়ের সঙ্গে খোশমেজাজে গল্প করছিলেন মেয়ে রবিনা। বৃদ্ধা মা এখন ভাল করে হাঁটতে পারেন না। বয়স ৯০ বছরের কাছাকাছি। চোখের দৃষ্টিও আর আগের চেয়ে অনেক ঝাপসা। জিজ্ঞেস করলেন মায়ের কী ভাল লাগে করতে? এতটা বছর পার করার পরে জীবনটাকে কী ভাবে দেখেন, এইসব নিয়ে কথা এগোচ্ছিল। কথা প্রসঙ্গেই মাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন মেয়ে, তাঁর জীবনে কোনও আক্ষেপ রয়েছে কি না!

উত্তরে মা জানালেন, জীবনে কখনও উপার্জন করতে পারলেন না তিনি। সে দিনের সেই গল্প সেখানেই শেষ হয়ে গিয়েছিল মায়ের কাছে। কিন্তু মেয়ের কাছে সেটা শেষ ছিল না। বরং ছিল মায়ের জন্য এক নতুন জীবন শুরুর অনুপ্রেরণা। ভারতের পাঞ্জাব ও হরিয়ানার রাজধানী চণ্ডীগড়ের বাসিন্দা এই মা ও মেয়ে। বৃদ্ধার নাম হরভজন কৌর আর তাঁর মেয়ে রবিনা। মেয়ের কাছেই থাকেন তিনি। মেয়ে-জামাই-নাতনিকে ঘিরেই এখন তাঁর পরিবার। মায়ের আক্ষেপের কথা জানার পর থেকেই রবিনা স্থির করে ফেলেছিলেন মায়ের জন্য কিছু করতে হবে। ছোটবেলায় তিনি দেখতেন, বাড়ির সকলেই মায়ের রান্নার প্রশংসা করতেন ভীষণ। রবিনা বলেন, বাড়িতে যে কোনও উৎসব বা অনুষ্ঠানে দোকান থেকে কখনও মিষ্টি আসত না। বাড়িতেই সকলের জন্য মিষ্টি বানাতেন মা। নানারকম সুস্বাদু আচারও বানাতেন তিনি।

অতীতের স্মৃতিচারণ করে রবিনা বলতে থাকেন, সে সময় মা ভীষণ লাজুক ছিলেন। তাঁর রান্না খেয়ে অতিথিরা প্রশংসা করতেন, অথচ মা লজ্জায় কখনও তাঁদের সামনে আসতেন না। দিনের বেশিরভাগ সময় ওই রান্নাঘরেই কাটাতেন। আজ থেকে চার বছর আগে রবিনা মাকে গিয়ে তাঁর নিজের স্টার্ট আপ শুরুর প্রস্তাব রাখেন। এই বয়সে এসে ব্যবসা! প্রথমে ভাবতেই পারছিলেন না হরভজন কৌর। পরে নাতনি এবং মেয়ে রবিনার জোরাজুরিতে ওই ৯০ বছর বয়সেই তিনি নিজের ব্যবসা শুরু করলেন। প্রথমে একদিন বেসনের বরফি আর নানা রকম আচার বানিয়ে কাছের একটি অর্গানিক বাজারে গিয়ে বিক্রি করেছিলেন। অবাক করা বিষয় হল প্রথম দিনেই সবটা বিক্রি হয়ে গিয়েছিল। বাড়ি ফিরেছিলেন হাতে ২০০০ টাকা নিয়ে। সেটাই ছিল তাঁর প্রথম উপার্জন।

মায়ের এমন আত্মতৃপ্তিতে খুশি রবিনা। জানালেন ওই প্রথম মায়ের চোখে মুখে ভরপুর আত্মবিশ্বাস দেখেছিলেন তিনি। তারপর থেকে আর মেয়ে আর নাতনিকে জোর করতে হয়নি, নিজেই কাস্টমারদের থেকে অর্ডার নিতেন, বেসনের বরফি বানিয়ে দোকানে পাঠিয়ে দিতেন। নাতনি তাঁর প্যাকিংয়ের কাজ করে। বর্তমানে ৯৪ বছর বয়স হরভজন কৌরের। গত চার বছর ধরে একই রকম উৎসাহ নিয়ে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। তাঁর এক কেজি বেসনের বরফির দাম ৮৫০ টাকা। মিষ্টির বাক্সের ট্যাগলাইন ‘হরভজন’স.. বচপন ইয়াদ আজায়ে’ এই চার বছরে মোট ৫০০ কেজি বরফি বিক্রি করেছেন তিনি। নাতনির বিয়েতেও নিজের হাতে মিষ্টি বানিয়ে অতিথিদের খাইয়েছেন হরভজন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana