সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৫:২৪ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
ভান্ডারিয়ায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালিত কৃষি কর্মকর্তা কর্তৃক সাংবাদিক হেনস্তার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ কাউখালীতে ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটি গঠন কাউখালীতে সংসারের হাল ধরতে বাবার পেশা খেয়া ঘাটের মাঝি হলেন স্কুল ছাত্রী মুনিরা ভান্ডারিয়ায় টাস্কফোর্স কমিটির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ভান্ডারিয়ায় ওয়ার্ল্ড ভিশনের দুর্যোগ সামগ্রী বিতরণ ভান্ডারিয়ায় ফুটপাতের অবৈধ দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান ভান্ডারিয়ায় বজ্রপাতে কৃষকের ৪ মহিষের মৃত্যু ভান্ডারিয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের অনশন চার ঘন্টা পর প্রত্যাহার ভান্ডারিয়ায় দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষনের চেষ্টা॥ লম্পটের আংশিক লিঙ্গ কর্তন কারারক্ষী পদে চাকুরীর প্রলোভন অর্থ আদায় ভান্ডারিয়ায় প্রতারক চক্রের দুই সদস্য গ্রেপ্তার ভান্ডারিয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় দোকানীকে গরম পানি দিয়ে ঝলসে দেওয়া অভিযোগ (ভিডিও) ভান্ডারিয়ায় পাওয়ার গ্রিডে আগুন ৫ উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ ৪ ঘন্টা বন্ধ কাউখালীতে এনজিও ঋনে সাধারণ মানুষ জর্জরিত মঠবাড়িয়ায় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে প্রশিক্ষণ ও উপকরন বিতরণ কাউখালীতে মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত সার্ক জার্নালিষ্ট ফোরাম বাংলাদেশ চাপ্টার এর কমিটি ঘোষণা ইন্দুরকানীতে সাঈদীর মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষীর মৃত্যু পিরোজপুরে জাল টাকা ব্যবসায়ীর ১৪ বছরের কারাদন্ডাদেশ ভান্ডারিয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ মামলার আসামী র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার
‘পড়াশুনা করমু, রিকশাও চালামু’

‘পড়াশুনা করমু, রিকশাও চালামু’

তিন বছর বয়সেই বাবা নেই। অভাবের সংসারে মা করেন দিনমজুরি। তাই সংসারের খরচ যোগাতে ছেলে সুজন মিয়া (১৬) নিজ এলাকাতেই রিকশা চালায়। কখনো রাজমিস্ত্রীর সহযোগি হিসেবেও কাজ করে। জীবন লড়াইয়ের কঠিন পর্বে কিশোর সুজন এবার এসএসসি পাশ করেছে। শিক্ষা ও কর্ম দুটোই তার কাছে গুরুত্বপূর্ন। স্বপ্ন সাজাতে তাই সুজনের উচ্চারন -‘রিকশা চালামু, পড়াশুনাও করমু’।

সুজন মিয়ার বাড়ি ময়মনসিংহ সদর উপজেলায়। ব্রহ্মপূত্র নদের অপরপাড়ে চরনিলক্ষীয়া ইউনিয়নের রাজগঞ্জ গ্রামে মা ও ছেলের সংসার। বাবা আদম আলী মারা গেছেন সুজন মিয়ার বয়স যখন তিন বছর তখন। একমাত্র ছেলে হিসেবে ছোটবেলা থেকে সুজন মাকে সাহায্য করতে দিনমজুরি শুরু করে। তবে কষ্টের জীবনে সে লেখাপড়া ছাড়েনি। এবছর লেতু মন্ডল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে সুজন মিয়া এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে জিপিএ ৩ দশমিক ৩৯ পেয়ে পাশ করেছে।

সুজন মিয়ার সাথে আলাপে জানা যায়, পরীক্ষার সময়ও রিকশা চালিয়েছে সে। প্রায় দেড় বছর ধরে এলাকাতে নিয়মিত রিকশা চালিয়ে সংসারে খরচ যোগায় সুজন। রাজমিস্ত্রীর সহকারী হিসেবে কাজ শিখছে।

রিকশার চালক সুজন মিয়া শহরের কলেজে ভর্তি হতে চায়। পড়ালেখা ও কর্ম কোনটাই হারাতে চায়না সে। তার বক্তব্য- ‘পড়াশুনা করমু, রিকশাও চালামু’।

ছাত্র সুজন মিয়া সর্ম্পকে লেতু মন্ডল স্কুলের প্রধান শিক্ষক আমেনা বেগম চম্পা বলেন, ‘ছেলেটি কষ্ট করে বড় হয়েছে। কিন্তু পড়ালেখা থেকে সরে যায়নি। রিকশা চালিয়েছে, দিনমজুরি করেছে, আবার ক্লাশও করেছে। তাকে নানাভাবে সহযোগিতা করা হচ্ছে।’

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন










© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana