বৃহস্পতিবার, ১৮ Jul ২০২৪, ০১:২৩ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
কটুক্তির প্রতিবাদে পিরোজপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও সন্তানদের মানববন্ধন কাউখালী গাঁজা সহ এক ঔষধ ব্যবসায়ী গ্রেফতার মারা গেছেন ছারছীনার পীর কাউখালীতে বিআরডিবি অফিসের জনবল সংকট, কাঙ্খিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ভুক্তভোগী জনগণ কাউখালীতে ৪০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক কাউখালীতে কৃষকদের মাঝে ফলের চারা বিতরণ বালু বোঝাই বাল্ক‌হেডের ধাক্কায় ব্রিজ ভে‌ঙে খা‌লে এক বছরেও পুণ:নির্মাণ হয়নি নাজিরপুরে যে কারনে মাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে ৯ বছরের সাজার জন্য ৩৫ বছর পালিয়েও শেষ রক্ষা হলো না স্কুল ছাত্রী অপহরণের ৩৩ দিন হলেও এখন পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি কাউখালীতে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইসলাম শিক্ষার ক্লাস নিচ্ছেন হিন্দু শিক্ষক পিরোজপুরে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে বিশেষ সেবা কার্যক্রম উদ্বোধন কাউখালী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে দেখা গেল সাপ কাউখালী উপজেলা অস্থায়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই চিকিৎসক নেই বেড, রোগীদের দুর্ভোগ চরমে কাউখালীতে ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে হাইজিন কিট বিতরন পিরোজপুরে দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ও নগদ অথের্র চেক বিতরণ কাউখালীতে জমি জমা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৪, গ্রেপ্তার ৪ নেছারাবাদে রিমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা প্রদান সরকার আপনাদের পাশে আছে, আমরা আপনাদের খোঁজখবর নিচ্ছি- জেলা প্রশাসক জাহেদুর রহমান কাউখালীতে প্রান্তিক চাষীদের মাঝে সার, বীজ ও নারকেল চারা বিতরণ
আপত্তিকর অবস্থায় দেখার পর বাবা-মামা মিলে মেয়েকে হত্যা

আপত্তিকর অবস্থায় দেখার পর বাবা-মামা মিলে মেয়েকে হত্যা

নিখোঁজের চারদিন পর উদ্ধার হওয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে লাইজু বেগম (১৬) নামে এক তরুণী হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে জড়িত নিহতের বাবা সনু মিয়া, ভাই আদম আলী ও মামা মাজু মিয়াকে গ্রেফতারের পরই রহস্য উদঘাটন হয়। আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে নিহত লাইজুর মামা মাজু মিয়া ও ভাই আদম আলী জানিয়েছে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে লাইজুর বাবা সনু মিয়া, ভাই আদম আলী ও মামা মাজু মিয়া লাইজুকে শ্বাসরোধে হত্যা করে।

ঘটনার কারণ হিসেবে পুলিশ জানায়, কিশোরী লাইজু আক্তার নাসিরনগর উপজেলার ধরমন্ডল গ্রামেই তাদের বাড়ির পাশে তার মামার বাড়িতে থাকতেন। গত ২২ জুন দুপুরে লাইজুকে বাড়ির পাশে পাটক্ষেতে এক যুবকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন মামা মাজু মিয়া। বিষয়টি লাইজুর বাবা সনু মিয়া ও মা সাফিয়া আক্তারকে জানান মাজু। এ ঘটনায় বাবা সনু মিয়া ক্ষিপ্ত হন। পরদিন ২৩ জুন সকালে সনু মিয়া ও মাজু মিয়া লাইজুকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২৩ জুন রাত সাড়ে ১০টার দিকে সনু মিয়া তার কন্যা লাইজুকে মামার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আসেন। পরে লাইজুকে তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন বাবা সনু মিয়া, মামা মাজু মিয়া লাইজুর ভাই আদম আলী। পরে তারা তার লাশ স্থানীয় একটি ডোবায় ফেলে দেন।

গত শনিবার (২৭ জুন) সকালে ধরমন্ডল গ্রামের লম্বাহাটি এলাকার একটি ডোবা থেকে লাইজুর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় লাইজুর মা সাফিয়া আক্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

নাসিরনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) কবির হোসেন জানান, লাইজুর লাশ উদ্ধারের পর পুলিশের পক্ষ থেকে মামলার কথা বলা হলেও প্রথমে তারা রাজি হয়নি। পরে তার মা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এতে করে পরিবারের প্রতি পুলিশের সন্দেহ হয়। মূলত মামাকেই টার্গেট করা হয়। এরপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদে বাবা ও ভাইয়ের সম্পৃক্ততার কথা বেরিয়ে আসে।

তিনি আরও বলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোজাম্মেল হোসেন রেজা দ্রুততম সময়ের মধ্যে এই হত্যা রহস্য উন্মোচন করেন।

পুলিশ গত রোববার লাইজুর মামা মাজু মিয়াকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে হত্যার দায় স্বীকার করেন। পরে তার তথ্যমতে সোমবার রাতে বাবা সনু মিয়াকে ও মঙ্গলবার (৩০ জুন) ভোরে একই গ্রাম থেকে ভাই আদম আলীকে গ্রেফতার করা হয়। সোমবার( ২৯ জুন) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা আহমেদের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন মামা মাজু মিয়া।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) দুপুরে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন ভাই আদম আলী। ওসি কবির হোসেন আরও জানান, লাইজুর নামে কিশোরী মেয়েটি বেপরোয়া ভাবে চলাফেরা করতো। এলাকার একাধিক ছেলেদের সঙ্গে মেলামেশা করতো। সবশেষ আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ে। এরপরই স্বজনেরা পরিকল্পিতভাবে হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটায়।

 

সুত্র bd24live.com

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana
error: Content is protected !!