মঙ্গলবার, ২৩ Jul ২০২৪, ১১:৪৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
কটুক্তির প্রতিবাদে পিরোজপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও সন্তানদের মানববন্ধন কাউখালী গাঁজা সহ এক ঔষধ ব্যবসায়ী গ্রেফতার মারা গেছেন ছারছীনার পীর কাউখালীতে বিআরডিবি অফিসের জনবল সংকট, কাঙ্খিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ভুক্তভোগী জনগণ কাউখালীতে ৪০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক কাউখালীতে কৃষকদের মাঝে ফলের চারা বিতরণ বালু বোঝাই বাল্ক‌হেডের ধাক্কায় ব্রিজ ভে‌ঙে খা‌লে এক বছরেও পুণ:নির্মাণ হয়নি নাজিরপুরে যে কারনে মাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে ৯ বছরের সাজার জন্য ৩৫ বছর পালিয়েও শেষ রক্ষা হলো না স্কুল ছাত্রী অপহরণের ৩৩ দিন হলেও এখন পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি কাউখালীতে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইসলাম শিক্ষার ক্লাস নিচ্ছেন হিন্দু শিক্ষক পিরোজপুরে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে বিশেষ সেবা কার্যক্রম উদ্বোধন কাউখালী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে দেখা গেল সাপ কাউখালী উপজেলা অস্থায়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই চিকিৎসক নেই বেড, রোগীদের দুর্ভোগ চরমে কাউখালীতে ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে হাইজিন কিট বিতরন পিরোজপুরে দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ও নগদ অথের্র চেক বিতরণ কাউখালীতে জমি জমা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৪, গ্রেপ্তার ৪ নেছারাবাদে রিমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা প্রদান সরকার আপনাদের পাশে আছে, আমরা আপনাদের খোঁজখবর নিচ্ছি- জেলা প্রশাসক জাহেদুর রহমান কাউখালীতে প্রান্তিক চাষীদের মাঝে সার, বীজ ও নারকেল চারা বিতরণ
করোনার ধকলে ‌‘খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে’ উড়ছে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট

করোনার ধকলে ‌‘খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে’ উড়ছে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট

দীর্ঘ বিরতির পর এক মাস ধরে দেশের অভ্যন্তরে ফ্লাইট চলাচল করছে। কিন্তু দিন যত যাচ্ছে, যাত্রীসংখ্যা ততই যেন কমছে। কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফ্লাইটগুলো পরিচালিত হলেও যাত্রীদের আস্থা মিলছে না। সংশ্লিষ্টদের মতে, দেশের করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার কারণে আকাশপথে যাত্রী মিলছে না।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান গত বুধবার  বলেন, ‌‘দেশের কোভিড রেট উঁচু হচ্ছে। মানুষের মধ্যে তাই শঙ্কা আছে। একেবারে প্রয়োজন ছাড়া ফ্লাইটে ভ্রমণ করছে না। তারপরও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কারণে কিছু যাত্রী আসছেন। যাত্রীদের আস্থা আসবে। একটু সময় লাগবে।’

করোনাভাইরাস মহামারি ঠেকাতে গত ২১ মার্চ থেকে দেশের অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দেয় বেবিচক। তবে গত ১ জুন ঢাকা থেকে সৈয়দপুর, চট্টগ্রাম ও সিলেট রুটে সীমিত পরিসরে ৭৫ শতাংশ যাত্রী নেওয়ার শর্তে ফ্লাইট চলাচলে অনুমতি দেওয়া হয়। স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস, ইউএস বাংলা এয়ারলাইনস ও নভোএয়ারকে আসা-যাওয়া মিলিয়ে ৪৮টি ফ্লাইট পরিচালনার কথা ছিল। কিন্তু যাত্রীসংকটের কারণে ১ জুন ঢাকা-সৈয়দপুর-ঢাকা রুটে দুটি ফ্লাইট চালিয়ে বিমান আর আকাশে ওড়েনি। ১১ জুন থেকে যশোরে ফ্লাইট চালু হলেও পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। বরং যাত্রীসংখ্যা পড়তির দিকে।

বেবিচকের তথ্য অনুযায়ী, গত ১ থেকে ৮ জুন পর্যন্ত প্রথম ৮ দিনে ২২৩টি ফ্লাইটে ৭ হাজার ২২০ জন যাত্রী ঢাকা থেকে চলাচল করেছেন। এর মধ্য ঢাকায় এসেছেন ৩ হাজার ৮১০ জন যাত্রী। ঢাকা ছেড়ে গেছেন ৩ হাজার ৪১০ জন। গড়ে প্রতিদিন আকাশপথে চলাচল করেছেন ৯০২ জন। আর গড়ে প্রতি ফ্লাইটে যাত্রী ছিল ৩৩ জন।

পরবর্তী দিনগুলোয় যাত্রীসংখ্যা আরও কমতি দিকে থাকে। ৮ থেকে ১৭ জুন পর্যন্ত ১১ দিনে ৯ হাজার ১৩৮ জন যাত্রী চলাচল করেছেন। গড়ে প্রতিদিনের যাত্রী ছিল ৮০৩ জন। এই ১১ দিনে ৩২৯টি ফ্লাইট চলছে। প্রতি ফ্লাইটে যাত্রীর গড় ছিল ২৭ দশমিক ৭৭।

১৮ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চলাচল করেছে ৫১৮টি, যাত্রী ছিল ১২ হাজার ২৭৫ জন। জুন মাসের শেষ ১৩ দিনে গড়ে প্রতি ফ্লাইটে যাত্রী ছিল ২৩ দশমিক ৬৯ জন। সব মিলিয়ে পুরো জুন মাসে অভ্যন্তরীণ রুটে ১০ হাজার ৫০টি ফ্লাইট চলাচল করেছে। যাত্রী ছিল ২৮ হাজার ৬৩৩ জন। পুরো জুন মাসে প্রতি ফ্লাইটে গড়পড়তা যাত্রী ২৭ জন।

অথচ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে প্রতি ফ্লাইটে ৭৫ শতাংশ যাত্রী নেওয়া হচ্ছে। নিয়ম অনুযায়ী অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচলকারী ৭৪ আসনের উড়োজাহাজে ৫০ জনের মতো যাত্রী বহন করার কথা। সেখানে পুরো জুন মাসে প্রতি ফ্লাইটে যাত্রী মিলেছে গড়ে ২৭ জন। এই সময়ে ভাড়া বাড়ানো হয়নি। প্রথম দিকে টিকিটের মূল্যে ছাড় দিয়ে যাত্রী পাওয়ার চেষ্টা করেছিল বেসরকারি বিমান সংস্থাগুলো। কিন্তু যাত্রীদের ভীতি দূর হয়নি। পরে সব রুটেই সর্বনিম্ন ভাড়া ২ হাজার ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু যাত্রী না পাওয়ায় লোকসানের বোঝা ভারী হচ্ছে।

বর্তমানে ঢাকা থেকে চারটি রুটে ইউএস–বাংলা ও নভোএয়ারের প্রতিদিন ৪৮টি ফ্লাইট পরিচালনার কথা। কিন্তু যাত্রীসংকটে প্রতিদিনই একাধিক ফ্লাইট বাতিল করতে হচ্ছে। বিশেষ করে চট্টগ্রাম রুটে খুব একটা যাত্রী মিলছে না। কারণ, বন্দরনগরীর করোনা পরিস্থিতি অবনতি হচ্ছে। এ ছাড়া যশোরে শুরুতে যাত্রী পাওয়া গেলেও মধ্য জুন থেকে খুলনা বিভাগের করোনা পরিস্থিতির বেশ অবনতি হয়েছে। তবে সৈয়দপুর রুট তুলনামূলক কিছুটা ভালো। কারণ, অভ্যন্তরীণ রুটগুলোর মধ্যে ঢাকা-সৈয়দপুরের দূরত্ব সবচেয়ে বেশি। দ্রুত নিরাপদে যাওয়ার কারণে এই রুটে যাত্রী কিছুটা বেশি পাওয়া যাচ্ছে।

ইউএস–বাংলা এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম  বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। আন্তর্জাতিক রুটের যাত্রীরা দেশে এসে স্বাভাবিক সময়ে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে করে ঢাকা ছাড়তেন। এখন আন্তর্জাতিক ফ্লাইটও প্রায় বন্ধই রয়েছে। বিদেশ থেকে দেশে আসছেন কম যাত্রী। তা ছাড়া দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য স্বাভাবিক হয়নি। খুব একটা প্রয়োজন ছাড়া কেউ ভ্রমণ করছেন না।

কোভিড পরিস্থিতির উন্নতি না হলে যাত্রীরা সহজে ফিরবেন না বলে জানান এভিয়েশন অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এওএবি) মহাসচিব ও নভোএয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মফিজুর রহমান। তিনি  বলেন, ১ জুন অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চালুর প্রথম দু-তিন দিন টিকিটের চাহিদা কিছুটা ছিল। তারপর যাত্রী কমতে থাকে। কারণ, করোনা পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাচ্ছে।

সূত্র: প্রথম আলোকে

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana
error: Content is protected !!