বুধবার, ১৭ Jul ২০২৪, ০১:০০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
কাউখালীতে বিআরডিবি অফিসের জনবল সংকট, কাঙ্খিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ভুক্তভোগী জনগণ কাউখালীতে ৪০ পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক কাউখালীতে কৃষকদের মাঝে ফলের চারা বিতরণ বালু বোঝাই বাল্ক‌হেডের ধাক্কায় ব্রিজ ভে‌ঙে খা‌লে এক বছরেও পুণ:নির্মাণ হয়নি নাজিরপুরে যে কারনে মাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে ৯ বছরের সাজার জন্য ৩৫ বছর পালিয়েও শেষ রক্ষা হলো না স্কুল ছাত্রী অপহরণের ৩৩ দিন হলেও এখন পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি কাউখালীতে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইসলাম শিক্ষার ক্লাস নিচ্ছেন হিন্দু শিক্ষক পিরোজপুরে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে বিশেষ সেবা কার্যক্রম উদ্বোধন কাউখালী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে দেখা গেল সাপ কাউখালী উপজেলা অস্থায়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই চিকিৎসক নেই বেড, রোগীদের দুর্ভোগ চরমে কাউখালীতে ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে হাইজিন কিট বিতরন পিরোজপুরে দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ও নগদ অথের্র চেক বিতরণ কাউখালীতে জমি জমা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৪, গ্রেপ্তার ৪ নেছারাবাদে রিমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা প্রদান সরকার আপনাদের পাশে আছে, আমরা আপনাদের খোঁজখবর নিচ্ছি- জেলা প্রশাসক জাহেদুর রহমান কাউখালীতে প্রান্তিক চাষীদের মাঝে সার, বীজ ও নারকেল চারা বিতরণ ভাণ্ডারিয়ায় পিকআপের ধাক্কায় ২ পথচারী নিহত, আহত ৪ সকলে মিলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করলে এলাকার শতভাগ উন্নয়ন করা সম্ভব- মহিউদ্দিন মহারাজ এমপি ভান্ডারিয়ায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত
নবীনগরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোটি টাকার অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ!

নবীনগরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোটি টাকার অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ!

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা
ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকুট অমর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাময়িক বহিস্কার হওয়া প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন ফান্ডের ১ কোটি ২৯ লক্ষ টাকার দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।
বিদ্যালয়ের নগদ ৭ লক্ষ ৯২ হাজার, মসজিদের ৩ লক্ষ ৫০ হাজার, দোকান ঘরের জামানত ১ লক্ষ ৫০ হাজার, দোকান নির্মাণে অতিরিক্ত ৫৯ লক্ষ ৪৩ হাজার টাকা ব্যয় দেখানো, অনুমোদন বিহীন খরচের ভাউচার ৫২ লক্ষ ৫৩ হাজার ২২১ টাকা, অনুমোদন বিহীন বেতন বৃদ্ধি ৮০ হাজার ১০০ টাকা, উপবৃত্তির টিউনশন ফি ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা সহ মোট ১ কোটি ২৯ লক্ষ তিনশত একুশ টাকা অনিয়ম ও আত্মসাৎ করার প্রমাণ পেয়েছে সরকারী অডিট কমিটি।
জানা যায়, ১৯১৩ সালে নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকুট গ্রামে বাবু অমর চন্দ্র ভট্টাচার্য বিদ্যাকুট অমর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। ওই বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন প্রধান শিক্ষকের পদটিতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক থাকায় সরকারী নিয়মমোতাবেক প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার পর ২০১৬ সালে নিয়োগ পরীক্ষায় দ্বিতীয় হয়েও প্রভাব খাটিয়ে মো. রফিকুল ইসলাম প্রধান শিক্ষক হয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তিনি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদে যোগদানের পর থেকেই বিভিন্ন ঘটনায় হয়েছেন আলোচিত সমালোচিত। ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে ওই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র রিফাত ক্লাসে ইংরেজি পড়া না পাড়ায় শিক্ষকের বেত্রাঘাতে চোখ নষ্ট হওয়ার ঘটনায় ২৩ এপ্রিল সংবাদপত্রে সংবাদ প্রকাশের পর ২৪ এপ্রিল প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামকে সাময়িক বহিস্কার ও ওই ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার পর ৮ মে ২০১৯ পুলিশ তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেল স্টেশন থেকে গ্রেফতার করেন। পরে জামিনে মুক্ত হয়ে আসেন তিনি।
এরপর থেকেই তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির তথ্য প্রকাশ হতে থাকে। ২০১৯ সালের বিদ্যালয়ের ৫ সদস্যর অভ্যন্তরীন অডিট প্রতিবেদন ও ২০২০ সালের নবীনগর উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক গঠিত অডিট কমিটির প্রতিবেদনে বেড়িয়ে আসে প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলামের দুর্নীতি ও অনিয়মের চিত্র। ম্যানেজিং কমিটির আবেদনের প্রেক্ষিতে, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. মোকাররম হোসেন ও উপজেলা সমবায় অফিসার মো. গোলাম মহিউদ্দিনকে নিয়ে গঠিত অডিট কমিটি ২০১৬ সাল থেকে শুরু করে ২০১৯ সালের জুলাই পর্যন্ত বিদ্যালয়ের আয়/ব্যয়ের অডিট শেষে প্রতিবেদন উল্লেখ করেন। প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলামের হাতে থাকা বিদ্যালয়ের নগদ ৭ লক্ষ ৯২ হাজার টাকা যা এখনো জমা হয়নি, দোকান ঘরের জামানত ১ লক্ষ ৫০ হাজার, দোকান নির্মাণে অতিরিক্ত ৫৯ লক্ষ ৪৩ হাজার টাকা ব্যয় দেখানো, অনুমোদন বিহীন খরচের ভাউচার ৫২ লক্ষ ৫৩ হাজার ২২১ টাকা, অনুমোদন বিহীন বেতন বৃদ্ধি ৮০ হাজার ১০০ টাকা, উপবৃত্তির টিউনশন ফি ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকাসহ মোট ১ কোটি ২৯ লক্ষ তিনশত একুশ টাকা অনিয়ম/আত্মসাৎ করেছে বলে বিল ভাউচার যাচাই বাছাই শেষে এ সব প্রমান পাওয়া যায়। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, মসজিদ খাতের ৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা দুই বছর পর কমিটির চাপে জমা দিলেও অনান্য খাতের টাকা জমা দেওয়ার জন্য বার বার কমিটির পক্ষ থেকে বলা হলেও জমা দেয়নি মো. রফিকুল ইসলাম।
প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলামের ১ কোটি ২৯ লক্ষ টাকার অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাৎ করার বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত করে বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. সফিকুর রহমান বলেন, প্রশাসন কর্তৃক বিদ্যালয়ের অডিট প্রতিবেদনে যে সব অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাতের বিষয় উঠে এসেছে, সে সব বিষয়ে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের মাধ্যমে শত বছরের পুরনো এ বিদ্যালয়টিকে কলংক মুক্ত করা হবে।
বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীন অডিট কমিটির আহবায়ক আবদুল হান্নান বলেন, আমরা যখন অডিট করেছি তখনও প্রধান শিক্ষকের বিভিন্ন অনিয়মের তথ্য প্রমাণ পেয়েছিলাম।
এবিষয়ে জানতে সাময়িক বহিস্কার হওয়া ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও অডিট কমিটির সদস্য মোকাররম হোসেন বলেন, বিদ্যালয়ের বিভিন্ন খাতে প্রধান শিক্ষক কর্তৃক অর্থ ব্যয়ে অনিয়ম ও আত্বসাতের সত্যতা পেয়েছি অডিটে। অডিট প্রতিবেদনটি ইউএনও স্যারের কাছে জমা দেওয়ার পর তিনি যাচাই-বাছাই করে একমত পোষণ করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠিয়েছেন।
তিনি আরো বলেন, একজন শিক্ষক এসব অনিয়ন ও অর্থ আত্মসাতের জড়িত থাকাটা খুবই দুঃখ জনক ঘটনা।
একটি সূত্র জানায়, বিদ্যালয়ের মার্কেট ও বাউন্ডারী নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজের সাথে কমিটির লোকজনও জড়িত রয়েছে, তাড়াও এসব ঘটনার দায় তারা এড়াতে পারেননা। জহির সিকদার ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১৪.০৮.২০২০ইং।
ছবির কেপশনঃ নবীনগরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোটি টাকার অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ!
Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana
error: Content is protected !!