রবিবার, ১৪ Jul ২০২৪, ১১:৪৩ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
নাজিরপুরে যে কারনে মাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে ৯ বছরের সাজার জন্য ৩৫ বছর পালিয়েও শেষ রক্ষা হলো না স্কুল ছাত্রী অপহরণের ৩৩ দিন হলেও এখন পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি কাউখালীতে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইসলাম শিক্ষার ক্লাস নিচ্ছেন হিন্দু শিক্ষক পিরোজপুরে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে বিশেষ সেবা কার্যক্রম উদ্বোধন কাউখালী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে দেখা গেল সাপ কাউখালী উপজেলা অস্থায়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই চিকিৎসক নেই বেড, রোগীদের দুর্ভোগ চরমে কাউখালীতে ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে হাইজিন কিট বিতরন পিরোজপুরে দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঢেউটিন ও নগদ অথের্র চেক বিতরণ কাউখালীতে জমি জমা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৪, গ্রেপ্তার ৪ নেছারাবাদে রিমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা প্রদান সরকার আপনাদের পাশে আছে, আমরা আপনাদের খোঁজখবর নিচ্ছি- জেলা প্রশাসক জাহেদুর রহমান কাউখালীতে প্রান্তিক চাষীদের মাঝে সার, বীজ ও নারকেল চারা বিতরণ ভাণ্ডারিয়ায় পিকআপের ধাক্কায় ২ পথচারী নিহত, আহত ৪ সকলে মিলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করলে এলাকার শতভাগ উন্নয়ন করা সম্ভব- মহিউদ্দিন মহারাজ এমপি ভান্ডারিয়ায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত মঠবাড়িয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী বায়জিদ কাউখালীতে মাদ্রাসার ছাত্রের আত্মহত্যা কাজল সভাপতি- নুর উদ্দিন সম্পাদক পিরোজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের কমিটি গঠন ভাণ্ডারিয়ায় গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী পলাতক
মঠবাড়িয়ায় চলাচলের পথে বাঁশের বেড়া, ভোগান্তিতে দুইটি পরিবার

মঠবাড়িয়ায় চলাচলের পথে বাঁশের বেড়া, ভোগান্তিতে দুইটি পরিবার

মোঃ রুম্নান হাওলাদার মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানিসাফা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড পূর্ব পাতাকাটা গ্রামের প্রায় অর্ধশত বছরের বাড়ির একটি রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয়ায় দুইটি পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে।

রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়ে দুটি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন একই গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা শামসু মুন্সি। শামসু মুন্সি ৯ নং ওয়ার্ড পূর্ব পাতাকাটা গ্রামের মৃত নূর উদ্দীন মুন্সির পুত্র। রাস্তাটি বন্ধ করে দেয়ায় ওই গ্রামের অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক ইউসুফ হোসেন ও খলিলুর রহমান মুন্সির পরিবারের সদস্যদের গত ১ দিন ধরে চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগী ইউসুফ হোসেন মাস্টার এর পুত্র জিয়াউল হক বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েও রাস্তাটি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করতে না পারায় গ্রামবাসীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

সরেজমিনে জানা গেছে,পাতাকাটা মৌজার ৪৮৬ নং খতিয়ানের ৩৫২৪ নং দাগভুক্ত ২কুড়া ২ কাঠা বাগান বাড়ি পজিশন ক্রয় সূত্রে মালিকানা থাকিয়া চলাচলের রাস্তা নির্মাণের ১৫ বছর পর ঈর্ষান্বিত হয়ে ১৭ অক্টোবর সকালে বেড়া দিয়ে আটকে দেয় খামখেয়ালি প্রতিবেশী মুক্তিযোদ্ধা শামসু মুন্সী। খামখেয়ালিপনায় অতিষ্ঠ হয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও জনপ্রতিনিধিরা সালিশ ব্যবস্থায় অপারগতা প্রকাশ করায় ভুক্তভোগী পরিবারটি প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগী ইউসুফ হোসেন মাষ্টার উপজেলার মোমেনিয়া দাখিল মাদ্রাসার অবসরপ্রাপ্ত ইংরেজি শিক্ষক।সন্তানদের মধ্যে সবাই উচ্চ শিক্ষিত।বড় ছেলে ফাইজুল হক ফয়সাল (এমবিবিএস,বিসিএস,স্বাস্থ্য) ভোলা সদর হাসপাতালে কর্মরত আছেন। ২য় ছেলে নাজমুল হক মার্কেইন্টাল ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ অফিসার,মেয়ে খাদিজা বেগম তুষখালী বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষিকা,ছেলে জিয়াউল হক ডাঃ রুস্তম আলী ফরাজী কলেজের প্রভাষক,আরেক ছেলে রেজাউল হক বিএসসি (অনার্স),এমএসসি সম্পন্ন করে চাকরিপ্রার্থী। পরিবারটি শিক্ষিত হওয়ায় এবং তারা কোন বিশৃঙ্খলায় না জড়িয়ে সালিশী ব্যবস্থা ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার সুযোগ নিয়ে জোর যার মুল্লুক তার প্রবাদটি কায়েম করতে বসেছে ওই শামসু মুন্সী।

স্থানীয়রা জানান,সামসু মুন্সীর পরিবারের বিরুদ্ধে গরু চুরি সহ বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। ইতোপূর্বে তার ছেলে প্রতিবেশী আব্দুল মালেক মুন্সীর ১টি গরু চুরি করে ধরা পড়ে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা দিয়ে মামলা থেকে বেঁচে যায়। এই পরিবারটির কার্যকলাপে স্থানীয়রা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।কথায় কথায় নারী নির্যাতন মামলার হুমকি দেওয়ায় মুখ খোলার সাহস পাচ্ছে না কেউ।”

ভুক্তভোগী ইউসুফ হোসেন মাষ্টার জানান,”রাস্তাটি সম্পূর্ণ আমার ক্রয়কৃত ভোগ দখলীয় জমির মধ্যে।এতদস্বত্বে মূল দলিল আছে।”

স্থানীয় ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন জানান, “বেড়া দিয়ে পথ রোধ করার বিষয়টি খামখেয়ালীপনা ছাড়া আর কিছুই নয়। বেড়া দ্রুত খুলে দেওয়া উচিত।”

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হারুন তালুকদার জানান,”কারো ভোগ দখলীয় জমিতে অবৈধভাবে প্রবেশ করে চলাচলের রাস্তা আটকে দেওয়া কোনোভাবেই কাম্য নয়।”

যুদ্ধকালীন ইয়ং অফিসার মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুল হক মজনু জানান,”আইন সবার জন্য সমান। মুক্তিযোদ্ধা বলে অন্যায় ও অনিয়ম করার কোন সুযোগ নেই। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের কাজ করা উচিত।”

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদুজ্জামান মিলু জানান,”পূর্ব পাতাকাটা গ্রামে চলাচলের রাস্তায় বেড়া দেওয়ার ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana
error: Content is protected !!