মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৪:৪০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
ঈদে বাড়ি ফেরার পথে পদ্মার চরে সন্তান জন্ম দিলেন বরিশালের সুমা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় সরাইল থানার ওসির বদলি মঠবাড়িয়ার ওসি সাহেব পারবেন তো কথা রাখতে ! মঠবাড়িয়ায় থানায় নবাগত ওসির যোগদান মঠবাড়ীয়ায় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে দুস্থ পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ মঠবড়িয়ায় বেগম খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া ও ইফতার মাহফিল রাজাপুরে দুঃস্থদের মাঝে ঈদবস্ত্র বিতরন করেছেন ইঞ্জিনিয়ার আবুল কাসেম সীমান্ত ভান্ডারিয়ায় ঈদের কেনাকাটায় মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাকচাপায় সিএনজি আরোহি  নিহত আহত-৩ মঠবাড়িয়া থানার ওসি মাসুদুজ্জামানের বিদায়ী সংবর্ধনা মঠবাড়িয়ায় রেড ক্রিসেন্ট‘র উদ্যোগে নগদ অর্থ ও বীজ বিতরণ ফাঁকা বাড়িতে ইফতার দিতে এসে রোজাদার গৃহবধূকে ধর্ষণ লালমাইয়ে প্রবাসীর স্ত্রী নিখোঁজ ভান্ডারিয়ায় নবাগত ইউএনও’র সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় মঠবাড়িয়ায় ব্যাংকের উদ্যোগে রমজানের উপহার সামগ্রী বিতরণ ২শ টাকার বাজার করে ৩শ টাকার হিসাব দেওয়ায় শরণখোলায় জামাইকে ত্যাজ্যপুত্র করলো শশুর! পিরোজপুরে টাউট রফিকুল ইসলামের কাছে এক অসহায় পরিবার জিম্মি ও পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বংশা‌লে রিকশাওয়া‌লা‌কে নির্যাতনকারী ব্য‌ক্তি‌কে আটক কর‌লো পু‌লিশ মঠবাড়িয়ায় দূর্বৃত্তের দেয়া চেতনা নাশকে ৬ জন অচেতন ‘ সুরক্ষা ও নিরাপত্তা সাংবাদিকদের প্রত্যাশা’
এবার তরমুজের কেজি মেপে দাম লিখে পিস হিসেবে বিক্রি

এবার তরমুজের কেজি মেপে দাম লিখে পিস হিসেবে বিক্রি

খুলনায় মধ্যস্বত্বভোগী দালাল আর বাজার সিন্ডিকেটের কারণে তরমুজ উৎপাদন করে দাম পাচ্ছেন না চাষীরা। একইভাবে ওই তরমুজ খুচরা বাজারে উচ্চদামের কারণে সাধারণ মানুষের পক্ষে কেনা সম্ভব হচ্ছে না।

ক্ষেত থেকে বাজার পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণ করছেন একটি সিন্ডিকেট। এরাই ক্ষেত থেকে পানির দরে তরমুজ কিনে বাজার নিয়ন্ত্রণ করছেন।

খুলনায় চলমান তাপদাহ তীব্র আকার ধারণ করেছে। এতে ধর্মপ্রাণ রোজাদারদের অবস্থা কাহিল হয়ে পড়ছে। সামান্য প্রশান্তি পেতে সারাদিন পর ইফতারে তরমুজে গলা ভেজাতে চাইছেন সবশ্রেণির মানুষ। কিন্তু আকাশ ছোঁয়া দামের কারণে সাধ ও সাধ্যের সমন্বয় ঘটাতে ব্যর্থ হচ্ছেন অধিকাংশ মানুষ। তরমুজ যেন এখন উচ্চবিত্তদের ফল হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ নিয়ে সবার মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।

সাধারণ ক্রেতারা বলছেন, ‘সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ব্যবসায়ীরা কেজি দরে তরমুজ বিক্রি করছে। যদি তাদের সিন্ডিকেট ব্যবসা থামানো না যায়। তাহলে তারা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠবে। তখন তাদের সামলানো দায় হয়ে দাঁড়াবে। তাই তাদের এখনই দমন করা উচিত।’

এ লক্ষে ফেসবুকে একাধিক গ্রুপও খুলেছেন ক্রেতারা। সেখানে কেজি দরে তরমুজ না কেনার ঘোষণা দিয়েছেন অনেকে।

হারুন নামের এক ক্রেতা জানান ‘কেজি হিসেবে বিক্রি হওয়া তরমুজ সাধারণ মানুষ কিনতে পারছে না দাম বেশি হওয়ার কারণে। মাঝারি বা বড় আকারের তরমুজও ক্রেতার নাগালের বাইরে। গরমের প্রবণতা যতো বাড়ছে তরমুজের চাহিদা তত বাড়ছে। সাথে সাথে দামও বাড়ছে ।’

তিনি বলেন, ‘ এক বছর হয়তো তরমুজ না খেলে কেও মারা যাবে না। সকলের উচিত তরমুজ না কিনে ব্যবসায়িদের সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দেওয়ার। তাহলে তারা এমনিতে পিস হিসেবে তরমুজ বিক্রি করবে।

খুলনার সালাম নামের এক পাইকার তরমুজ ব্যবসায়ি বলেন, ‘আমরা শ হিসাবে কিনে আনি। শ হিসেবেই খুচরা দোকানিদের কাছে বিক্রিও করি। তারা বেশি লাভ করার জন্যই কেজি হিসেবে বিক্রি করেন। তবে এবার প্রথমতো রোজা আর দ্বিতীয়ত লকডাউন থাকার কারণে তরমুজের দাম গত বছরের চেয়ে বেড়েছে প্রায় দুই গুন।’

তিনি বলেন, ‘লকডাউনের কারণে ট্রাক ভাড়া দ্বিগুণেরও বেশি। তাছাড়া পথে এবং ফেরিঘাটে বেশি খরচ দিতে হয়। তাই মোকামে আসা পর্যন্ত দাম অনেক বেড়ে যায়।’

‘প্রচুর গরমের কারণে মানুষের কাছে তরমুজের চাহিদা বেশি। এ সুযোগে খুচরা ব্যবসায়িরা তরমুজের দাম বাড়িয়েছে’, তিনি বলেন।

খুলনার খুচরা বাজারগুলো ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি তরমুজ বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা দরে। সাধারনত ৩ কেজির নিছে তরমুজের কেজি ৩০ টাকা । ওজন ৩ কেজির বেশি হলে ৪০ টাকা দরে বিক্রি হয়।

এতে ৫ কেজি ওজনের একটি তরমুজের দাম পড়ছে ২০০ টাকা। আর ১০ কেজি ওজনের তরমুজের দাম পড়ছে ৪০০ টাকা।

তবে পাইকার বাজারে বড় আকারের ১০০ পিস তরমুজ বিক্রি হয় ১২ হাজার থেকে ১৮ হাজার টাকায়।

বৃহস্পতিবার খুলনার কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক হাফিজুর রহমান জানান, জেলায় এবার সাড়ে ৭ হাজার ৫১২ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষ করা হয়েছে। ফলনও বেশ ভালো। এতে কৃষক খুবই খুশি হয়। কিন্তু বর্তমানে বাজারে অতি উচ্চদামে তরমুজ বিক্রি হলেও ওই দাম মাঠের কৃষকরা পাননি।

 

 

সুত্র prabartan.com

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন










© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana