শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ১১:০৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পিকআপ চাপায় নিহত ২ স্কুল ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত’র প্রতিবাদ করায় বখাটের হামলায় ভাই আহত ভান্ডারিয়ায় ইউপি সদস্যের ওপর হামলা মঠবাড়িয়ায় পদোন্নতির দাবীতে ভূমি অফিসার্স কল্যাণ সমিতির কালোব্যাজ ধারণ সরাইলে স্বপ্নের রাস্তা নির্মাণ করলেন গ্রামবাসী মঠবাড়িয়ায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ভান্ডারিয়ায় জোরদার করণ বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত স্বরূপকাঠির ইট ভাটাগুলোতে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে, প্রশাসন নিরব দেখার ও বলার কেউ নেই মঠবাড়িয়ায় প্রায় ১৪ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজে ঠিকাদার নির্ধারনে লটারী ভান্ডারিয়ায় বাংলাদেশে ওয়ার্ল্ড ভিশনের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন ভান্ডারিয়ায় হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ ভুমি সহকারি কর্মকর্তা ও ভুমি উপ সহকারি কর্মকর্তাদের উন্নত বেতন স্কেলের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে কালোব্যাজ ধারন কর্মসুচি পালিত রাজাপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী সহ আহত-৮ রাজাপুরের কানুদাসকাঠী প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তদন্তে যুগ্নসচিব বানারীপাড়ায় উদয়কাঠিতে  অনৈতিক কাজ করতে গিয়ে ২ যুবককে হাতেনাতে ধরে  পুলিশে কাছে সোপর্দ প্রতিবন্ধী শিশুদের ব্যক্তিগত ৪০ লাখ টাকা অনুদান দিলেন ভাণ্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ভান্ডারিয়ায় ভাতিজার হামলায় চাচার মৃত্যু ভান্ডারিয়ায় সাড়ে চার কেজি গাঁজা জব্দ এক মাদক কারবারি গ্রেফতার দুর্নীতির অভিযোগে সাবেক অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি ভান্ডারিয়ায় উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত
শ্রমিক-মালিকদের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

শ্রমিক-মালিকদের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

পঁচাত্তরের ১৫ই আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যার পর এ দেশে ট্রেড ইউনিয়ন বাতিল করা হয়েছিল জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, `আমরা ট্রেড ইউনিয়ন করার অধিকারটা আদায় করতে সক্ষম হয়েছিলাম।’

আজ বুধবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ‘গ্রিন ফ্যাক্টরি অ্যাওয়ার্ড ২০২০’ প্রদান এবং মহিলা কর্মজীবী হোস্টেলসহ আটটি নবনির্মিত স্থাপনা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

 

শেখ হাসিনা বলেন, `পঁচাত্তরের ১৫ই আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যার পর এ দেশে ট্রেড ইউনিয়ন বাতিল করা হয়েছিল। পরে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছিল জিয়াউর রহমান। এরপর ক্ষমতা দখল করে অবৈধভাবে জেনারেল এরশাদ। ‘৮৪ সালে রাষ্ট্রপতি একটা ডায়ালগের ডাক দিয়েছিল। আমরা বঙ্গভবনে সেখানে গিয়েছিলাম আলোচনা করতে। কিন্তু আলোচনা শুরুর আগেই আমার দুটি শর্ত ছিল। একটা হচ্ছে, শ্রমিকদের ট্রেড ইউনিয়ন করতে দিতে হবে। আরেকটা হলো, আমাদের ১৪ জন ছাত্রনেতাকে জিয়াউর রহমান ফাঁসির আদেশ দিয়েছিল, তাদের সেই আদেশ বাতিল করার।’

 

শেখ হাসিনা বলেন, `পঁচাত্তরের পর যে ট্রেড ইউনিয়ন জিয়াউর রহমান বাতিল করেছিল, ‘৮৪ সালে আমরা সেই ডায়ালগ করার সময়েই এই ট্রেড ইউনিয়ন করার অধিকারটা আদায় করতে সক্ষম হয়েছিলাম। এটা অবশ্য অনেকের জানার কথা না বা হয়তো এখন ভুলেই গেছে। কিন্তু আমি আজকের দিনে সেটা স্মরণ করছি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এ দেশের কৃষক-শ্রমিক মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ের জন্যই সারাটা জীবন সংগ্রাম করেছেন।’

এ সময় স্বাধীনতা-উত্তরকালে শিল্পকারখানা ও শ্রমজীবী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

 

মালিক-শ্রমিকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, শ্রমিক-মালিকদের একটা সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক থাকতে হবে। মালিকদের সব সময় মনে রাখতে হবে, এই শ্রমিকেরা শ্রম দিয়েই কিন্তু তাঁদের কারখানা চালু রাখেন এবং অর্থ উপার্জনের পথ করে দেন। সেই সঙ্গে শ্রমিকদেরও এই কথাটা মনে রাখতে হবে যে এই কারখানাগুলো আছে বলেই কিন্তু তাঁরা কাজ করে খেতে পারছেন। তাঁদের পরিবার-পরিজনকে পালতে পারছেন বা তাঁরা নিজেরা আর্থিকভাবে কিছু উপার্জন করতে পারছেন। কাজেই কারখানা যদি ঠিকমতো না চলে, তাহলে নিজেদেরই ক্ষতি হবে।’

 

সরকারপ্রধান বলেন, `যে কারখানা আপনার রুটি-রুজির ব্যবস্থা করে, অর্থাৎ আপনার খাদ্যের ব্যবস্থা করে বা আপনার জীবন-জীবিকার ব্যবস্থা করে, সেই কারখানার প্রতি যত্নবান হতে হবে। অনেক সময় আমরা দেখি, কিছু কিছু শ্রমিকনেতা আছেন, বাইরে থেকে তাঁরা হয়তো উসকানি দেন বা কোনো কোনো মহল উসকানি দেয় বা একটা অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করার চেষ্টা করে। একটা কথা মনে রাখতে হবে, এখন বিশ্ব প্রতিযোগিতামূলক। এই প্রতিযোগিতাময় বিশ্বে যদি শিল্প-কলকারখানা এবং উৎপাদন এবং রপ্তানি এটা যদি সঠিকভাবে চলতে হয়, তাহলে কিন্তু কারখানাগুলো যাতে যথাযথভাবে চলে তার ব্যবস্থা নিতে হবে।’

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, `আর যদি সেখানে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি হয়, তাহলে কিন্তু এই রপ্তানিও যেমন বন্ধ হবে, তখন কর্মপরিস্থিতি থাকবে না। নিজেরাও কাজ হারাবেন এবং তখন বেকারত্বের অভিশাপ নিয়ে ঘুরতে হবে। সে কথাটা মনে রেখে শ্রমিক যাঁরা তাঁদেরও কিন্তু নিশ্চয়ই একটা দায়িত্ববান ভূমিকা পালন করতে হবে। কাজেই এখানে মালিক-শ্রমিকের সম্পর্কটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মালিকদের দেখতে হবে শ্রমিকদের অসুবিধা কী বা তাদের জীবন-জীবিকা সুন্দরভাবে যাতে চলে, সেই ব্যবস্থা করা। শ্রমের ন্যায্য মূল্যটা যেন তাঁরা পান এবং শ্রমের পরিবেশ যেন সুন্দরভাবে থাকে, সেটাও যেমন তাঁদের দেখতে হবে; আবার শ্রমিকদেরও দায়িত্ব থাকবে কারখানাটা যেন সুন্দরভাবে চলে, উৎপাদন যেন বাড়ে সেই ব্যাপারটাও দেখতে হবে। কাজেই সেদিকে লক্ষ্য রেখেই কিন্তু আপনাদের কাজ করতে হবে।’

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, `করোনাকালে উৎপাদন অব্যাহত থাকায় মালিক-শ্রমিকদের ধন্যবাদ জানাই। আমাদের শিল্পোন্নয়নে মূল চালিকাশক্তি মালিক-শ্রমিক সম্পর্ক। আমি আশা করি আমাদের গার্মেন্টসসহ বিভিন্ন শিল্পকারখানা যাতে গ্রিন ফ্যাক্টরি হয়, তার জন্য আমরা বিশেষ সুবিধা দিয়েছি। এই ফ্যাক্টরি তৈরিতে যে সমস্ত পণ্য প্রয়োজন হয়, সেগুলোর ট্যাক্স আমরা কমিয়ে দিয়েছি। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অন্যান্য সুবিধাও আমরা দিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, `আমরা শিল্পায়নের ওপর জোর দিয়েছি। সেই শিল্পায়ন শুধু রাজধানীভিত্তিক না, সমগ্র বাংলাদেশেই আমরা বিশেষ শিল্পাঞ্চল গড়ে তুলছি। ঠিক যেভাবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিসিক শিল্পনগরী গড়ে তুলেছিলেন। আমরা তারই পদাঙ্ক অনুসরণ করে এখন সমগ্র বাংলাদেশে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছি।’

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন










© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana