শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পিকআপ চাপায় নিহত ২ স্কুল ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত’র প্রতিবাদ করায় বখাটের হামলায় ভাই আহত ভান্ডারিয়ায় ইউপি সদস্যের ওপর হামলা মঠবাড়িয়ায় পদোন্নতির দাবীতে ভূমি অফিসার্স কল্যাণ সমিতির কালোব্যাজ ধারণ সরাইলে স্বপ্নের রাস্তা নির্মাণ করলেন গ্রামবাসী মঠবাড়িয়ায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ভান্ডারিয়ায় জোরদার করণ বিষয়ক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত স্বরূপকাঠির ইট ভাটাগুলোতে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে, প্রশাসন নিরব দেখার ও বলার কেউ নেই মঠবাড়িয়ায় প্রায় ১৪ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজে ঠিকাদার নির্ধারনে লটারী ভান্ডারিয়ায় বাংলাদেশে ওয়ার্ল্ড ভিশনের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন ভান্ডারিয়ায় হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ ভুমি সহকারি কর্মকর্তা ও ভুমি উপ সহকারি কর্মকর্তাদের উন্নত বেতন স্কেলের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে কালোব্যাজ ধারন কর্মসুচি পালিত রাজাপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় নারী সহ আহত-৮ রাজাপুরের কানুদাসকাঠী প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তদন্তে যুগ্নসচিব বানারীপাড়ায় উদয়কাঠিতে  অনৈতিক কাজ করতে গিয়ে ২ যুবককে হাতেনাতে ধরে  পুলিশে কাছে সোপর্দ প্রতিবন্ধী শিশুদের ব্যক্তিগত ৪০ লাখ টাকা অনুদান দিলেন ভাণ্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ভান্ডারিয়ায় ভাতিজার হামলায় চাচার মৃত্যু ভান্ডারিয়ায় সাড়ে চার কেজি গাঁজা জব্দ এক মাদক কারবারি গ্রেফতার দুর্নীতির অভিযোগে সাবেক অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি ভান্ডারিয়ায় উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত
জীবন যুদ্ধেজয়ী পাঁচ সফল নারির গল্প

জীবন যুদ্ধেজয়ী পাঁচ সফল নারির গল্প

গাজী আবুল কালাম,ইন্দুরকানী,পিরোজপুর,প্রতিনিধিঃ
নিজ উপজেলায় শিক্ষা ও চাকরি, অর্থ, সফল জননী,সমাজ উন্নয়ন,ও নির্যাতনের বিভিষিখা কাটিয়ে উঠে নতুন জীবন শুরু করা ক্যাটাগরিতে সাফল্য অর্জনকারী জয়িতা নির্বাচিত হলেন ইন্দুরকানী উপজেলার পাঁচ নারি।
স্বপ্নের ডানা মেলে নীল আকাশে ওড়ার সাধ আশৈশবের লালিত দারিদ্রপীরীত সামাজিক সমস্যায় জর্জরিত দেশের দক্ষিন অঞ্চলের অবহেলিত উপজেলা ইন্দুরকানীর বিভিন্ন গ্রামে এদের জন্ম।
আন্তরর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে জয়িতা অন্বেষনে বাংলাদেশ কার্যক্রমের আওতায় জয়িতাা সম্মাননা শিক্ষা ও চাকুরীর ক্ষেত্রে বিষেশ অবদানের জন্য উপজেলা পর্য়ায়ে শ্রেষ্ট্র জয়ীতা নির্বাচিত হলেন শারমিন হোসেন।
শিক্ষকতা পেশার পাশাপাশি তিনি সামাজিক ও আর্থসামাজিক উন্নয়নে তথা শিক্ষা বিস্তারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন এই উপজেলার বিভিন্ন প্রান্তে নারী শিক্ষা সম্প্রসারণে তিনি রয়েছেন সচেতন।

অর্থনৈতিক ভাবে সাফল্য অর্জনকারি নারি নাজমুন নাহার মুকুল তিনিও উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের ইব্রাহীম জোমাদ্দারের কন্যা। বিবাহের পরে এইচ এসসি পাশ করে ডিগ্রী ভর্তি হয়েও শাশুরির অসহোযোগীতায় তার পরা শুনা হলোনা। তিনি স্বপ্ন দেখতেন কিকরে সমাজে নিজের একটা পরিচয় তৈরিকরা যায়।সেই লক্ষে পরিবারের অমতে ঢাকায় এস এম ই ফাউন্ডেশন থেকে ফ্যাশন ডিজাইনের উপর প্রশিক্ষ নিয়ে গড়ে তোলেন ঐশী বুটিক হাউজ সেখানে এলাকার অন্য অন্য মেয়েদের প্রশিক্ষনের ব্যাব¯’া করে । নাজমুন নাহার মুকুল যুব উন্নয়ননে প্রশিক্ষন নেন ব্লক বাটিকের উপরে । নিজ পন্য বিক্রয় করে অর্থনৈতিক ভাবে সাফল্য অর্জন করেন।
সফল জননী নির্বাচিত হলেন ইন্দুরকানী গ্রামের মতিয়ার রহমানের মেয়ে মনিরা বেগম তিনি ১২ বছরে বিয়ে হয় পারিবারিক ভাবেই বিয়ের এক বছর পরে শুরু হয় পারিবারিক নির্যাতন শাশুরি ছিল তার স্বামীর সৎমা মনিরার স্বামীকে বিভিন্ন ভাবে কুপরামশর্ দিয়ে মনিরার উপরে শারিরিক ও মানুষিক নির্যাতন শুরু করেদিল। এক সময় সামান্য কিছু কাপরও হাড়ি পাতিল দিয়ে সংসার আলাদা করে দিল।এক সময়ে একে একে মনিরার কোল জুরে এল তিনটি কন্য সন্তান। পরে স্বামীর চাহিদা অনুযায়ী আরও দুটি সন্তান জন্ম দিতে হয়েছে মনিরার । এত বড় সংসার চালাতে হিমসিম খেতে লাগল মনিরা স্বামিকে বুঝিয়ে শুরু করলেন কাগজের ঠোঙ্গা তৈরির কাজ। আয় থেকে তার সন্তারদের মানুষ করে তুলেছেন তিনি বড় মেয়েকে এইচসএসি, মেজকে এসএসসি,সেজকে অর্নাস করিয়ে মার্স্টাসে । এবং ছেলেকে মাট্রিক পাশের পরে কম্পিউটার প্রশিক্ষন দি”েছ তার ছোট মেয়ে বর্তমানে দশম শ্রেণীতে পরে।

উম্মে ছালমা আক্তার ইন্দুরকানী উপজেলার কালাইয়া গ্রামের আবুছালেহ মোঃ আঃ রশিদের মেয়ে অভাবের সংসারে বেড়ে উঠে অনেক কষ্ঠকরে। বাবা ছিলেন মাদ্রাসার শিক্ষক আয় তেমন ছিলনা তাই তারতারি বিয়ে দিয়েদেন স্বামীর বাড়িতেও তেমন ভাল ভাবে কাঠাতে পারেননী তিনি। শাশুরি ও ননদের নির্যাতন সহ্যকরেণ এর মধ্যেই প্রথম সন্তান গর্ভে আসে শাশুরি নির্যাতন তখন আরও বেড়ে যায় এমন কি গায়ে হাত পর্যন্ত উঠে। তার স্বামী তাকে সাথে নিয়ে বাড়ি ছারেন। তার দুইটি সন্তান হয়, তার স্বামী শাহিন মাতুব্বর ডাকাতদের হাতে নিহত হন। তিনি গ্রামে এসে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার অফিসে ফ্যাশান ডিজাইনের উপরে ফ্রশিক্ষন নিয়ে টেইলারিংয়ের দোকানে কাজ করেও সন্তানদের লেখা পড়া চালিয়ে জা”েছন।
উপজেলার পাড়েরহাট ইউনিয়নের লাবনী আক্তার সমাজ উন্নয়নে বিশেষ ভুমিকায় জয়ীতা নির্বাচিত হয়েছেন লাবনী আক্তার তালাকপ্রাপ্ত এক হতভাগ্য নারি । লাবনীর বাবা যৌতুকের টাকার জন্য তার মাকে তালাকদেন সেই থেকে বাবার আদর স্নেহ থেকে বঞ্চিত মায়ের অন্যত্র বিয়ে হয় লাবনী চলে যায় তার খালার কাছে তার খালাকের যৌতুকের জন্য স্বামীর ঘর ছাড়তে হয়েছিল। সেই শুরু অনেক কষ্টে লেখাপা চলছে টিউশনী করে খেয়ে-নাখেয়ে বর্তমানে লাবনী অর্নাস করছেন, লেখা পড়ার পাশাপাশি তিনি বাল্য বিয়ে যৌতুক, নারী নির্যাতন ও সমাজের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কাজ করে চলছেন তার স্বপ্ন এ দেশে একদিন যৌতুকের জন্য আর কারো ঘর যেন না ভাঙ্গে নারি নির্যাতন যেন বন্ধ হয় সমাজ থেকে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন










© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana