সোমবার, ২৪ Jun ২০২৪, ১০:০৩ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
সরকার আপনাদের পাশে আছে, আমরা আপনাদের খোঁজখবর নিচ্ছি- জেলা প্রশাসক জাহেদুর রহমান কাউখালীতে প্রান্তিক চাষীদের মাঝে সার, বীজ ও নারকেল চারা বিতরণ ভাণ্ডারিয়ায় পিকআপের ধাক্কায় ২ পথচারী নিহত, আহত ৪ সকলে মিলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করলে এলাকার শতভাগ উন্নয়ন করা সম্ভব- মহিউদ্দিন মহারাজ এমপি ভান্ডারিয়ায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত মঠবাড়িয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী বায়জিদ কাউখালীতে মাদ্রাসার ছাত্রের আত্মহত্যা কাজল সভাপতি- নুর উদ্দিন সম্পাদক পিরোজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের কমিটি গঠন ভাণ্ডারিয়ায় গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী পলাতক ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে সংসদ সদস্য মহিউদ্দিন মহারাজের খাদ্য সহয়তা বিতরণ কাউখালীতে ত্রাণ না পাওয়া মহিলা মেম্বারের পরিবারের উপর হামলা। নিহত-১ গ্রেফতার-২ কাউখালিতে ঘূর্ণিঝড় রিমেলে বিধ্বস্ত জোলাগাতি মাদ্রাসা , খোলা আকাশের নিচে পাঠদান ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে শক্তি ফাউন্ডেশনের সহায়ত প্রদান কাউখালীতে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী পালন করা হয় মঠবাড়িয়ায় চেয়ারম্যান পদের প্রার্থিতা বাতিলের পরও সভা : কর্মীদের বাঁশের লাঠি নিয়ে প্রস্তুতির নির্দেশ মঠবাড়িয়ার চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজের প্রার্থিতা বাতিল কাউখালীতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতিসহ ৪ প্রার্থী জামানত হারান কাউখালীতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আবু সাঈদ মিয়া পুনরায় উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভান্ডারিয়ায় মিরাজুল ইসলামের জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া অনুষ্ঠান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র রাজপথে মোকাবেলা করতে হবে — যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ
রাতভর ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র চবি

রাতভর ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র চবি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। রাত ২টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দুই গ্রুপের সংঘর্ষ চলছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে সব ধরণের বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া এবং থেমে থেমে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটছে। এ ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক সৃষ্টি হয়।

বুধবার বিকালে ছাত্রলীগের এক কর্মীকে কুপিয়ে জখম করাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মধ্যে দিয়ে ঘটনার সূত্রপাত ঘটে। এতে তাৎক্ষণিক ছাত্রলীগের ছয় কর্মী আহত ও সন্দেহভাজন চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। বিবাদমান দুটি পক্ষ হলো নগরীর সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের অনুসারী কনকর্ড ও সিক্সটি নাইন এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী বিজয় গ্রুপ।

আটককৃতরা হলেন- সংস্কৃত বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের সীমান্ত দাস, একই শিক্ষাবর্ষের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের বেলায়েত আকতার ও দর্শন বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের মেহেদী হাসান। আটক অন্যজন হলেন বহিরাগত। তিনি রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বাসিন্দা আরিফ।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গত পহেলা মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের আলাওল হলে কনকর্ডের কর্মী বোরহানুল ইসলাম আরমানের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয় আবির নামে বিজয়ের এক কর্মীর। এর জের ধরে গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে আবিরকে কুপিয়ে জখম করে কনকর্ডের কর্মীরা। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাতে ক্যাম্পাসজুড়ে থমথমে পরিবেশ সৃষ্টি হলেও অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ঘটেনি। এর রেশ ধরে বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে শাহ জালাল হলের সামনে কনকর্ড গ্রুপ অবস্থান নিলে বিজয় গ্রুপের কর্মীরা তাদের ধাওয়া দেওয়ার চেষ্টা করে। পরে তাদের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় বিজয় গ্রুপ সোহারওয়ার্দী হল থেকে এবং কনকর্ড গ্রুপ শাহাজালাল হলের সামনে থেকে পাল্টাপাল্টি ইট ও ভাঙ্গা কাচ ছুঁড়তে থাকে। এক পর্যায়ে বিজয় গ্রুপের কর্মীরা কনকর্ডের কর্মীদের উপর হামলা করতে করতে শাহ জালাল হলের মধ্যে ঢুকে পড়ে। এরপর শাহাজালাল হলের গেইট ও ভেতরে দাফায় দফায় দু’গ্রুপে সংঘর্ষ বাধে। এতে উভয় গ্রুপের বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হয়। এসময় শাহাজালাল হলে থাকা সিটি মেয়র আ জ ম নাসিরের অনুসারী উপ-গ্রুপগুলো এক হয়ে ধাওয়া করে বিজয়ের কর্মীদের। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান নিয়ে উভয় পক্ষকে লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এসময় পুলিশ ছাত্রলীগ কর্মীদের ধাওয়া দিয়ে চারজনকে আটক করে। বর্তমানে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

রাতভর ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র চবি

ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বিজয় গ্রুপের নেতা মো. ইলিয়াস বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে দুইদিন আগে সৃষ্ট অন্য পক্ষগুলোর সংঘর্ষের ঘটনা ধামাচাপা দিতেই তারা আমাদের কর্মীর উপর হামলা চালিয়েছে। এসব বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় তারা আরও প্রশ্রয় পাচ্ছে।’

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক কমিটির সহ-সভাপতি ও কনকর্ড গ্রুপের নেতা আব্দুল মালেক বলেন, ‘তাদের (বিজয়ের) একটা ছেলে আমাদের এক ছেলেকে কিছুদিন আগে মারধর করে। আমি তাদের বলেছিলাম এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে। কিন্তু তারা কিছুই করেনি। পরে আমাদের ছেলেরা ক্ষোভে তাদের এক কর্মীকে মারধর করে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান বলেন, ‘ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত। আমরা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করছি।’ আটকের বিষয়ে প্রক্টর বলেন, ‘পুলিশ চারজনকে সন্দেহভাজন আটক করেছে। তাদেরকে বিশ্বিবদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়িতে রাখা হয়েছে। যাচাই বাছাই করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana
error: Content is protected !!