সোমবার, ২৪ Jun ২০২৪, ০২:৫৩ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
সকলে মিলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করলে এলাকার শতভাগ উন্নয়ন করা সম্ভব- মহিউদ্দিন মহারাজ এমপি ভান্ডারিয়ায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত মঠবাড়িয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী বায়জিদ কাউখালীতে মাদ্রাসার ছাত্রের আত্মহত্যা কাজল সভাপতি- নুর উদ্দিন সম্পাদক পিরোজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের কমিটি গঠন ভাণ্ডারিয়ায় গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী পলাতক ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে সংসদ সদস্য মহিউদ্দিন মহারাজের খাদ্য সহয়তা বিতরণ কাউখালীতে ত্রাণ না পাওয়া মহিলা মেম্বারের পরিবারের উপর হামলা। নিহত-১ গ্রেফতার-২ কাউখালিতে ঘূর্ণিঝড় রিমেলে বিধ্বস্ত জোলাগাতি মাদ্রাসা , খোলা আকাশের নিচে পাঠদান ভান্ডারিয়ায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে শক্তি ফাউন্ডেশনের সহায়ত প্রদান কাউখালীতে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের শাহাদত বার্ষিকী পালন করা হয় মঠবাড়িয়ায় চেয়ারম্যান পদের প্রার্থিতা বাতিলের পরও সভা : কর্মীদের বাঁশের লাঠি নিয়ে প্রস্তুতির নির্দেশ মঠবাড়িয়ার চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজের প্রার্থিতা বাতিল কাউখালীতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতিসহ ৪ প্রার্থী জামানত হারান কাউখালীতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আবু সাঈদ মিয়া পুনরায় উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত ভান্ডারিয়ায় মিরাজুল ইসলামের জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া অনুষ্ঠান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র রাজপথে মোকাবেলা করতে হবে — যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ভান্ডারিয়ায় শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ভান্ডারিয়া উপজেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ভান্ডারিয়ায় মৎস্যজীবিদের মাঝে জাল ও বকনা বাছুর বিতরণ
সিলেটে নারীকে চিকিৎসা না দিয়েই হাসপাতাল ধরিয়ে দিলো বড় অংকের বিল

সিলেটে নারীকে চিকিৎসা না দিয়েই হাসপাতাল ধরিয়ে দিলো বড় অংকের বিল

সিলেটের একের পর এক প্রাইভেট হাসপাতালের বিরুদ্ধে উঠছে বড় বড় অভিযোগ। ইতিমধ্যে চিকিৎসা না পেয়ে এই সব হাসপাতাল গুলোতে ইতোমধ্যে প্রাণ ঝড়ে গেছে ৪ জনের। এই ঘটনার সুবিচার দাবিতে সিলেট যখন ক্ষুব্ধ, ঠিক সেই সময়ে আবারো চিকিৎসা না দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আরো একটি বেসরকারি হাসপাতালের বিরুদ্ধে।

অভিযোগকারীর নাম গোলাপ মিয়া। সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার ইলাশপুর গ্রামের এই ব্যক্তি জানান, কিডনী ও ডায়াবেটিকস সমস্যায় নিজ স্ত্রী নাসিমা আক্তার চৌধুরীকে গেলো ৪ জুন তিনি নগরীর আখালিয়ায় মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে ভর্তি করেন। ভর্তিকালীন অভ্যর্থনায় রোগীর নিয়মিত চিকিৎসক ডাক্তার আলমগীর চৌধুরীকে হাসপাতালে নিয়ে আসার দাবি জানালেও কিডনি বিষয়ে স্পেশালিষ্ট হিসেবে ডা. নাজমুস সাকিব রোগী দেখবেন বলে জানিয়ে দেওয়া হয়।

গোলাপ মিয়া জানান, স্পেশালিষ্ট হিসেবে ডা. নাজমুস সাকিবের নাম বলা হলেও বৃহস্পতিবার থেকে আজ ৬ জুন শনিবার পর্যন্ত হাসাপাতালে কোনো চিকিৎসক প্রবেশ করেননি। তিনি জানান, কতৃপক্ষ স্ত্রী নাসিমা আক্তারকে আইসিসিউতে রাখলেও শনিবার পর্যন্ত ওই রুমে কেউই প্রবেশ করেননি। এ ব্যাপারে বারবার রিসিপশনে কথা বলেও ডাক্তার আসার নিশ্চয়তা পাওয়া যায়নি। তিনি জানান, শনিবার সকাল থেকে রোগীর অবস্থা আরো খারাপের দিকে চলে যেতে থাকলে, আবারো বিষয়টি নিয়ে কর্মরতদের সাথে কথা বলি। কিন্তু তাতেও সাড়া পাননি তিনি। এই অবস্থায় গোলাপ মিয়া স্ত্রীকে বাঁচানোর জন্য দ্রুত ঢাকায় পাঠানোর সিদ্বান্ত গ্রহণ করেন।

খবর পেয়ে রাতেই গোলাপ মিয়ার কাছে ৭৫হাজার টাকার একটি বিল পাঠিয়ে দেওয়া হয় হাসপাতালের। বিলের দিকে চোখ পড়তেই দু’চোখ ছানাবড়া হয়ে উঠে। তিনি যোগাযোগ করেন অভ্যর্থনা কক্ষে। কর্মরতরা অপারগতার বিষয়টি বারবার জানিয়ে দিলে গোয়ালা বাজারের চিকিৎসক ইকবাল মাসুদের (ভর্তিকালীণ রেফারেন্স) সহায়তায় ২০ হাজার টাকা দিয়ে আপাতত রোগী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রোগীকে এম্বুলেন্স গাড়িতে তোলেন।

আবেগতাড়িত কণ্ঠে তিনি এই প্রতিবেদককে জানান, কর্তৃপক্ষ শুরু থেকেই অপারগতা প্রকাশ করলে তখন অন্য হাসপাতালে রোগীকে ভর্তি করা যেতো। কিন্তু চিকিৎসা করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এখন রোগীর অবস্থা শোচনীয়। এই অবস্থায় কোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দায় বহন করার কথা তিনি প্রতিবেদককে জানিয়ে রাখেন।

এদিকে, সিলেটের হাসপাতালগুলোতে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তিনি আজ শুক্রবার (৫ জুন) এসব হাসপাতাল ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সিলেটের দায়িত্বে নিয়োজিত পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের সচিব লোকমান হোসেন মিয়াকে নির্দেশ দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এক চিঠিতে মন্ত্রী বলেন, ‘সিলেটের বেসরকারী হাসপাতালগুলো নানা অজুহাতে কোন রোগী গ্রহণ করছেন না। ভর্তি বা চিকিত্সা প্রত্যাখ্যান করায় আজ দ্বিতীয় রোগী অ্যাম্বুলেন্সে মারা গেছেন। বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের সাথে একটি বৈঠক করুন। সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা নিশ্চিত করার সরকারের যে স্পষ্ট নির্দেশ রয়েছে সেটি জানিয়ে দেন। সাধারণ ও গুরুতর রোগীদের চিকিৎসা প্রদানে অস্বীকারকারী হাসপাতালগুলোর লাইসেন্স প্রয়োজনে স্থগিত করার ব্যবস্থা গ্রহন করুন।

এ ব্যাপারে ডা. নাজমুস সাকিব বলেন, আমি পেশাগত কারণে করোনাকালীন খুব ব্যস্থ সময় কাটাচ্ছি। শামসুদ্দিন হাসপাতালেও আমাকে দায়িত্ব পালন করতে হয়। তিনি বলেন, অভ্যর্থনা কক্ষ থেকে আমাকে রোগীর ব্যাপারে কিছুই জানানো হয়নি। তবে, শনিবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে গেলে ওই রোগীর সাথে কথা বলি। তখন রোগীর পক্ষ থেকে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য মনস্থির করা হয়। ডা. নাজমুস সাকিব বলেন, রোগীকে কেউ ঢাকা নিয়ে যেতে চাইলে সেখানে তো আমাদের আপত্তি থাকার কথা নয়।

সুত্র ক্রাইম সিলেট

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 pirojpursomoy.com
Design By Rana
error: Content is protected !!